বৌ এর সম্পর্কে এ কি বললেন অনির্বান!! নাটক কর্মী তথা বন্ধু মধুরিমা গোস্বামীর সঙ্গে দীর্ঘদিন সম্পর্কে আবদ্ধ ছিলেন অনির্বাণ


 পরমব্রত চট্টোপাধ্যায় এবং আবিরের পর বাঙালি মেয়েদের অন্যতম ভালোলাগার মানুষ হল অনির্বাণ ভট্টাচার্য। তার চোখের চাহনি তার অভিনয় সকলকে মুগ্ধ করে দিয়েছে বহুবার। এক কথায় তাকে ভালবেসে ফেলেছিল আবাল-বৃদ্ধ-বনিতা। তাই হয়তো যখন তার বিয়ের খবর প্রকাশ্যে এসেছিল, অনেকেই মন থেকে মেনে নিতে পারেনি এই খবর।

বহু নারীর মন ভেঙে নভেম্বর মাসে মনের মানুষের সঙ্গে সাতপাকে বাঁধা করেছিলেন অনির্বাণ ভট্টাচার্য। নাটক কর্মী তথা বন্ধু মধুরিমা গোস্বামীর সঙ্গে দীর্ঘদিন সম্পর্কে আবদ্ধ ছিলেন অনির্বাণ। খুব সাদামাটা ভাবে বিয়ে হয়েছিল তাদের। অনাড়ম্বর এই বিয়ে দেখে অনেকেই উপহাস করেছিলেন তাদের। যদিও তারকা দম্পতি কোন সমালোচনাকে পাত্তা দিতে নারাজ। কিন্তু সম্প্রতি সংবাদমাধ্যমের সামনে স্ত্রীর সম্পর্কে একি কথা বললেন অনির্বাণ! তার নাকি আর ভালই লাগছে না স্ত্রীর সঙ্গে একই ছাদের তলায় থাকতে। শুনে নিশ্চয়ই আপনিও চমকে গেলেন।

শুনে নিন আসল ঘটনাটি। সম্প্রতি একটি সংবাদ মাধ্যমের সামনে নতুন দাম্পত্য জীবন নিয়ে কথা বলেন অনির্বাণ ভট্টাচার্য। চিরকাল চাঁচাছোলা কথা বলতে ভালোবাসেন অনির্বাণ। তাই দাম্পত্য জীবন নিয়ে কোনো রাখঢাক না করে তিনি স্পষ্ট জানান যে, স্ত্রীর সঙ্গে একসাথে একই ছাদের তলায় থেকে থেকে এবার বড্ডো একঘেয়ে জীবন লেগে যাচ্ছে তার। এ কথাটি হয়তো শুনে আপনি ভাববেন, তাহলে কি সম্পর্ক এই কয়েকদিনের মধ্যে বিবাহবিচ্ছেদের দিকেই এগিয়ে যাচ্ছে? না আসলে তা একেবারেই নয়।

অনির্বাণ জানিয়েছেন, তিনি বেশ সুখেই রয়েছেন স্ত্রীর সঙ্গে। বিবাহিত জীবন বেশ ভালই লাগছে তার। একই সঙ্গে অনেকটা সময় কাটাতে পারছেন তারা। কিন্তু কাজ পাগল মানুষ অনির্বাণ এবং মধুরিমা। তাই কিঞ্চিৎ বলতেই হয়, এবারে হাঁপিয়ে উঠেছেন তারা। সকাল থেকে রাত গৃহবন্দি অবস্থায় থাকতে থাকতে আর যে ভালো লাগছে না তাদের। তাই এবার ব্যস্ত জীবনে ফিরে যেতে চাইছেন তারা।

প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগে উত্তরবঙ্গের শুটিংয়ের পর মধুরিমা কে অনির্বাণ নিয়ে গিয়েছিলেন কালিম্পং। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে গেলে হয়তো দূরে কোথাও যাবার পরিকল্পনা করবেন তারা। আপাতত গৃহবন্দি অবস্থায় সারাদিনে এভাবে কেটে যাচ্ছে তাদের।

Post a Comment

Previous Post Next Post