ফের নয় জনকে গ্ৰেফতার

বেশ কয়েকদিন ধরেই জল্পনা তুঙ্গে উঠেছে আরিয়ান খানকে নিয়ে, এবার  পরিবারের  অস্বস্তিজনক পরিস্থিতি আরো বাড়িয়ে দিল এনসিবি, মাদক কান্ডে ইতিমধ্যে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন আরিয়ান খান, যদিও ইতিমধ্যে তার জামিনের আর্জি খারিজ করেছে মুম্বাই মেট্রোপলিটন কোড আপাতত তার জায়গা জেলই, এবার তাঁকে জেরা করার পরে সমন পাঠানো হল শাহরুখ খানের গাড়ির ড্রাইভারকে।

 যার ফলে অস্বস্তি কিছুটা হলেও বাড়ল খান পরিবারের। যদিও শাহরুখ ভক্তরা তাঁর পাশে আছেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন, এমনকি বলিউডের তারকারাও তাঁর পাশে থাকার বার্তা পাঠিয়েছেন। কিন্তু দিন যত এগোচ্ছে ততোই যেন খান পরিবারের উপর অস্বস্তি ছায়া ঘনিয়ে আসছে। যদিও এই মাদক কান্ডের অপারেশন চালাতে গিয়ে নানান তথ্য বেরিয়ে আসছে,যা যথেষ্টই চাঞ্চল্য সৃষ্টি করছে।

 এনসিবির জোনাল ডিরেক্টরের এদিন নিজে সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন যে, শাহরুখ খানের ড্রাইভারকে সমন পাঠানোর ব্যাপারটি, এমনকি এ দিন এনসিপি নেতা নবাব মালিকের অভিযোগেরও জবাব দিয়েছেন। তিনি জানান শনিবার রাতের রেভ পার্টি থেকে মোট তিনজন নয় ছয় জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। তবে তিন জনকে ছেড়ে দেওয়া হয় কারণ তাদের বিরুদ্ধে কোনো সঠিক প্রমাণ বা তথ্য পাওয়া যায়নি বলে, কিন্তু তাঁদের পরিচয় গোপন করা হয়েছে তাদেরই সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে।

 তবে এনসিপি নেতা এদিন দাবি করেছেন যে, মাদক অভিযান চলাকালীন কর্ডিলেরা নামক ক্রুজ থেকে দু'জনকে বেরিয়ে যেতে দেওয়া হয়, সেই দুজন ব্যক্তির মধ্যে একজন আবার রাজনৈতিক নেতার আত্মীয় তাও আবার পদ্মফুল শিবিরের। এছাড়াও তিনি বলেন প্রাক্তন বিজেপি যুব মোর্চার নেতা মোহিত ভারিয়ামের শ্যালক ষভব  সচদেব  এবং আমির ফার্নিচারওয়ালা ও প্রতীক গাবা নামক তিনজনকে। নবাব মালিক এনসিবির বিরুদ্ধে এই অভিযোগ তোলেন,  এদিকে যদিও সেই সমস্ত কিছু তথ্য উড়িয়ে দিয়েছেন সমীর ওয়াংখেড়ে, তিনি এদিন স্পষ্ট করে জানিয়ে দেন যে সমস্ত আইন মেনেই এনসিবি তার অপারেশন চালাচ্ছে তা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই।

Post a Comment

Previous Post Next Post