মিষ্টি সুপারি চিবোচ্ছিলেন বলেছেন পুলিশের কাছে

রাতারাতি এভাবে পরিচিত মুখ হয়ে উঠবেন শোবিত পান্ডে, তা তিনি স্বপ্নেও ভাবেননি। কিন্তু প্রশ্ন হল কে এই শোবিত পান্ডে?
 কানপুরের গ্রীন পার্কে ভারত নিউজিল্যান্ড টেস্ট ম্যাচের খেলা দেখতে আসা একজন দর্শক।যিনি কানপুরের মহল মাহেশ্বরী এলাকার বাসিন্দা।

 গ্রীন পার্কের ভিআইপি স্ট্যান্ডে বসে খেলা দেখার সময় নাকি তিনি গুটকা খাওয়ার জন্য রাতারাতি সাধারণ মানুষদেরকে তারকা হয়ে উঠেছেন এবং নেট মাধ্যমের সৌজন্যে তার নাম হয়েছে গুটকা ম্যান। সেই নামেই তিনি বর্তমানে বেশ খ্যাতির শীর্ষে, তবে তাঁকে বেশ বিড়ম্বনায় ফেলেছে এই ঘটনা। কিন্তু কি ঘটেছিল ঘটনাটি?

 বৃহস্পতিবার ম্যাচ চলাকালীন ক্যামেরাম্যান তাঁর ক্যামেরাটিকে প্যান করান এবং সেই প্যান করার সময় ক্যামেরাবন্দি হয়ে যায় সেসময়ের কার্যকলাপটি। কিন্তু কি এমন করছিলেন তিনি?  মুখের ভেতরে কিছু একটা চিবোচ্ছিলেন আর যেটা চিবোতে চিবোতে বামহাতে ফোন দিয়ে কারো সাথে কথা বলতে ব্যস্ত ছিলেন তিনি।আর আমরা সবাই জানি যে স্টেডিয়ামের ভেতর জলের বোতল, গুটকা, সিগারেট এ সমস্ত জিনিস সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।

 যার ফলে এখানে ছবি সামনে আসতেই পুলিশ যথেষ্ট তৎপর হয়েছেন এবং নেট মাধ্যম ও মানুষজনের সাহায্য নিয়ে তারা শোবিতের খোঁজ চালাচ্ছেন। তাঁর কাছে ইতিমধ্যেই বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের ফোন আসছে যাতে তিনি যথেষ্টই বিব্রত এবং সংবাদ সংস্থা এন আই এ কে তিনি নিজে জানান যে, যে চর্চা তাঁকে নিয়ে চলছে সম্পূর্ণ মিথ্যা। তিনি কোন গুটকা খাননি, তিনি তখন মিষ্টি সুপারি খাচ্ছিলেন এবং সেই সাথে তিনি ফোনে যার সাথে কথা বলছিলেন তিনি তাঁর এক বন্ধু, তিনিও সেখানে খেলা দেখতে এসেছিল এবং তাঁর বন্ধু তাঁকে ফোন করে জানতে চেয়েছিল সে কত নম্বর গেটে আছে।

 মাত্র ১০ সেকেন্ডের কথাবাত্রা হয় তাদের, এরইমধ্যে তিনি এমন ভাইরাল হয়ে উঠলেন যে, সেদিন ওই টেস্ট ম্যাচে শ্রেয়াস আইয়ার তার অর্ধশতরান করেও এতটা জনপ্রিয় হয়ে উঠতে পারেননি। তাঁর জনপ্রিয়তাকে ঢেকে দিয়েছেন শোবিতের কীর্তি, নজর করেছেন এই গুটকা খাওয়ার ছবি।

 এমনকি সোশ্যাল মিডিয়ার জেরে  তাঁর পাশে বসে থাকা তরুনী বোনকে নিয়েও নেট মাধ্যমে নানান কুমন্তব্য হচ্ছে, যা নিয়ে যথেষ্টই অস্বস্তিতে তিনি এবং তিনি অভিযোগ করেছেন যে তাঁর বোনকে নিয়ে এহেন কুরুচিকর মন্তব্য তাঁর মোটেও ভালো লাগছে না। এত কাণ্ডের পরেও শুক্রবারও তাঁকে দেখা গিয়েছিল স্টেডিয়ামে বসে খেলা দেখতে।

Post a Comment

Previous Post Next Post