বিভৎস ছবি চোখে পড়বে ধূমপায়ীদের



               "তামাকজাত দ্রব্য সেবন শরীরের পক্ষে ক্ষতিকারক। এটি ক্যান্সারের কারণ হতে পারে" - এই সতর্কীকরণ লাইনটি আমরা প্রায়ই শুনে থাকি। সিগারেটের প্যাকেট এর ওপর ক্যান্সার আক্রান্ত মুখমণ্ডলের বীভৎস ছবি ধূমপানকারীদের চোখ এড়ায়নি। তবে, ১ লা ডিসেম্বর থেকে এই ছবি আরও ভয়াবহ আকারে আসতে চলেছে। 

              বিভিন্ন সময় সিগারেটের প্যাকেট এর ওপর বিভিন্ন ছবির মাধ্যমে ধূমপানকারীদের সতর্ক করা হয়েছে, যা দেখে গা শিউরে ওঠে। ২০০৮ সালে প্যাকেটের প্রায় ৫০% জায়গা জুড়ে এই সতর্কীকরণ স্লোগান (টোব্যাকো কজেস পেইনফুল ডেথ) এবং ছবি (ক্যান্সার আক্রান্ত মুখমণ্ডল) রাখা বাধ্যতামূলক করা হয়। ২০২০ সালে সিগারেট ও বিড়ির প্যাকেটের প্রায় ৮৫% জুড়ে করা হয় ওই  গা ঘিনঘিনে ছবি। ধূমপানকারীরা সেই ছবি প্রতিদিন দেখেও নিকোটিনের ধোঁয়া নিচ্ছেন প্রতিনিয়ত। 

             বিশেষ সূত্রের খবর, সিগারেটের প্যাকেট এর এই ভয়াবহ ছবিগুলির সেট তৈরি করা হয়েছে। প্রতিটি ছবির মেয়াদ ১ বছর। একই ছবি প্রতিদিন দেখতে দেখতে তার প্রভাব হ্রাস পাওয়া স্বাভাবিক। আর তাই, ১ বছর অন্তর এই ছবি চেঞ্জ করে ধূমপানকারীদের সতর্ক করা হয়। বর্তমান ছবির মেয়াদ শেষ হচ্ছে ৩০শে নভেম্বর। ১ লা ডিসেম্বর থেকে আসছে ক্যান্সার আক্রান্ত ক্ষতচিহ্ন এর আর একটি ভয়াল ছবি।

             ২০১৮ সালে সিগারেট অ্যান্ড টোবাকো প্রোডাক্টস (প্যাকেজিং অ্যান্ড লেবেলিং) ২০০৮ সালের রুলস সংশোধন করে তামাকজাত দ্রব্যের প্যাকেটের উপর ছবিসহ বিধিবদ্ধ সতর্কীকরণ বাধ্যতামূলক করেছে। গ্লোবাল অ্যাডাল্ট টোবাকো সার্ভের (জিএটিএস) রিপোর্টের কথা উল্লেখ করে কেন্দ্রীয় সরকার দাবি করেছে, এরফলে ধূমপায়ীর সংখ্যাও কমেছে। ছবিসহ বিধিবদ্ধ সতর্কীকরণ বাধ্যতামূলক করার ফলে ৬২ % সিগারেট সেবনকারী এবং ৫৪ % বিড়ি সেবনকারী ধূমপান ছাড়ার ব্যাপারে আগ্রহ দেখিয়েছে। 



                     

Post a Comment

Previous Post Next Post