অদম্য অধিনায়ক আজ পরাজিত


               ক্যান্সার আক্রান্ত ইংল্যাণ্ডের প্রাক্তন অধিনায়ক ইলিংওয়ার্থ। কষ্ট সহ্য করতে না পেরে চাইছেন স্বেচ্ছামৃত্যু। তাঁর চিকিৎসকদের জানিয়েছেন, তিনি আর বাঁচতে চাননা। স্বেচ্ছায় মৃত্যুকে বরণ করতে চান তিনি। কিন্তু, ইংল্যান্ডে নেই সেই আইন।

                ইলিংওয়ার্থ - বয়স ৮৯। ১৯৭০-৭১ সালে তাঁর নেতৃত্বেই অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ইংল্যান্ড "অ্যাশেজ" জিতেছিল। সেই অদম্য অধিনায়ক আজ ক্যান্সারের কাছে পরাজিত। খাদ্যনালীতে ক্যান্সার ধরা পড়েছে। চলছে রেডিয়োথেরাপি।

              ইলিংওয়ার্থ এর স্ত্রী শিরলে চলতি বছরেই ইহলোকের মায়া ত্যাগ করেছেন। তিনিও ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন। স্ত্রীর কষ্টের কথা মনে করেই ইলিংওয়ার্থ জানিয়েছেন, "ওঁর জীবনের শেষ ১২ টা মাস ছিল ভয়াবহ। অসহ্য যন্ত্রণা সহ্য করতে হয়েছে ওঁকে। বাঁচার তাগিদে শুধু এক হাসপাতাল থেকে আর এক হাসপাতালে ছুটে যেতে হয়েছে। আমি সত্যিই চাইনা, আমারও সেরকম অবস্থা হোক। এটাকে বেঁচে থাকা বলেনা। এটা কোনো জীবন নয়। আমি স্বেচ্ছামৃত্যুতে বিশ্বাসী। কারণ, কষ্টের থেকে মুক্তি শ্রেয়। যদিও এটা আমাদের দেশে এখনও অবধি স্বীকৃত নয়। এই নিয়ে তর্ক, আলোচনা চলছে, চলবে। আশা করি, খুব শীঘ্রই আমাদের দেশেও স্বেচ্ছামৃত্যু স্বীকৃতি পাবে"।

          বিশেষ সূত্রের খবর, অতিরিক্ত একটি কেমো দিয়ে শেষ টিউমারটি বের করে দেওয়ার চেষ্টা করছেন চিকিৎসকরা। আক্ষেপের সুরে ইলিংওয়ার্থ বলেছেন, " দেখা যাক, ভাগ্য আমার সহায় হয় কিনা"।



                    

Post a Comment

Previous Post Next Post