অভিষেক নেই একথা তারা মানতে নারাজ


             দেড় মাস আগেই প্রয়াত হয়েছেন টলিউডের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেতা অভিষেক চ্যাটার্জী। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে না ফেরার দেশে পাড়ি দিয়েছেন অভিনেতা। তাঁর মৃত্যুতে শোকাহত সিনেপ্রেমী থেকে তাঁর অগণিত ভক্তদল। তাঁর এই অকাল প্রয়াণে একেবারে একা হয়ে গিয়েছেন অভিনেতার স্ত্রী সংযুক্তা এবং মেয়ে ডল। 

           তবে, সাময়িকভাবে ভেঙে পড়লেও মেয়ের মুখ চেয়ে নিজেকে সামলে নিয়েছেন সংযুক্তা। আর অভিষেকের ইচ্ছের মান রাখতেই ডলের ১২ বছরের জন্মদিন পালন করলেন তিনি। সোমবার (০৯.০৫.২০২২) শহরের প্রথম সারির একটি রেস্তোরাঁয় জাঁকজমকপূর্ণভাবে ১২ বছরে পদার্পণ করলো সাইনা চ্যাটার্জী ওরফে ডল। প্রায় ১০০ জনের নিমন্ত্রণ ছিল সেই পার্টিতে। ডলের পছন্দের কোরিয়ান জনপ্রিয় পপ গানের দল বিটিএস থিমের কেক আনা হয়েছিল। ঘনিষ্ঠ কিছু আত্মীয়স্বজন, বন্ধুবান্ধব সকলকে নিয়ে সাড়ম্বরে পালিত হলো জন্মদিনের অনুষ্ঠান। 

         সেইদিন একটি সাক্ষাৎকারে অভিষেক পত্নী জানিয়েছেন, "অভির ইচ্ছেতেই এই আয়োজন। গত দুবছর অতিমারী পরিস্থিতির জন্য ডলের জন্মদিন পালন করা যায়নি। এইবছর আড়ম্বরপূর্ণভাবেই মেয়ের জন্মদিন পালনের প্ল্যান ছিল অভির। আজ ও শারীরিকভাবে আমাদের মধ্যে নেই ঠিকই, কিন্তু, প্রতিমুহূর্তে ও আমাদের সঙ্গ দিচ্ছে, মেয়েকে আশীর্বাদ করছে। ডল হাসিখুশি থাকলে আমি জানি ও যেখানেই থাকুক, ভালো থাকবে"। সংযুক্তা আরও বলেছেন, "এখন থেকে তো আমিই ডলের বাবা, আমিই ওর মা। তাই অভির প্রতিনিধিত্ব করবো বলেই ওর সাদা কালো এই শার্টটা পরেই জন্মদিনের পার্টিতে অংশগ্রহণ করলাম"।

         মঙ্গলবার মেয়ে সাইনার জন্মদিনের কিছু ছবি শেয়ার করেছেন সংযুক্তা। ছবিতে দেখা যাচ্ছে, মেয়ে তার বাবার ছবিতে কেক খাইয়ে দিচ্ছে। এই ছবি দেখেই চোখ ভিজেছে নেটিজেনদের। আবেগঘন হয়ে পড়েছেন তারা। যদিও অভিষেক আর নেই এই কথা বিশ্বাসই করেন না সংযুক্তা। বাবার ছবি সবসময় সঙ্গেই রাখে ডল। রাতে সংযুক্তা এবং ডলের মাঝে অভিষেকের ছবি নিয়ে ঘুমায় তারা। সকালে চোখ মেলে প্রথমেই বাবাকে আদর করে মেয়ে। এমনকি জন্মদিনের কেক কেটেও প্রথমে বাবার ছবিতেই খাইয়ে দিয়েছে ডল। 

         বলাই বাহুল্য, অভিষেকের অকাল মৃত্যু মাত্র ১২ বছর বয়সে অনেকটাই বড়ো করে তুলেছে  ডলকে। সদ্য কৈশোরে পা দিয়েই সে এখন মাকে সামলে রাখতে শিখে গেছে - এমনটাই জানিয়েছেন সংযুক্তা।

Post a Comment

Previous Post Next Post