ডেলিভারী বয় কিছুদিন আগে ছিলেন শিক্ষক

চাঁদা তুলে হিরো স্প্লেন্ডার বাইক গিফট করলেন নেটিজেনরা, গিফট করলেন দুর্গা মিনাকে। প্রশ্ন উঠতে পারে কে এই দুর্গা মীনা? আসুন জানা যাক সে সম্পর্কে বিস্তৃতভাবে।

 দুর্গা বর্তমানে  জোম্যাটোর একজন ডেলিভারি বয়; কিন্তু এর আগে  তাঁর আরেকটি পরিচয়ও রয়েছে তিনি একজন শিক্ষক,স্কুলে পড়াতেন। কোভিদের সময়ে তাঁর চাকরি চলে যায়, বিগত ১২ বছর ধরে তিনি শিক্ষকতা করেন, কিন্তু কোভিড তাঁর চাকরি শেষ করে দেয়, একথা তিনি জানান আদিত্য শর্মা নামে একজন ব্যক্তিকে জোম্যাটোর একজন কাস্টমার, যার বাড়িতে খাবার ডেলিভারি দিতে গিয়েছিল। 

 যার সাথে দুর্গে মিনা সম্পূর্ণ কথোপকথনটা ইংরেজিতে বলেন, চরম আর্থিক সঙ্কটের মধ্যে পড়ে গত ৪ মাস আগে তিনি যোগদান করেন জোমাটো ডেলিভারি পার্টনার হিসেবে, বর্তমানে তিনি তা থেকে    প্রতি মাসে  উপার্জন করছেন ১০০০০ টাকা,  তাঁর ইচ্ছা এই সমস্ত টাকা জড়ো করে তিনি একটি বাইক কিনবেন বলে মনস্থির করেছেন, তিনি দিনে ১০ থেকে ১২ টা খাবার ডেলিভারি করে থাকেন সমস্ত টাই সাইকেলের উপরে নির্ভরশীল, যে কারণে তাঁর নিঃশ্বাস ফেলার সময় থাকেনা।

  তিনি অবশেষে আফশোসের সুরে বলেন যদি তাঁর একটি বাইক থাকতো তাহলে কাজটা খুবই সহজ হত। এমনকি তিনি আদিত্যর কাছে অনুরোধ করেন একটি বাইকের ডাউনপেমেন্ট করে দিতে, তিনি দায়িত্ব নিয়ে মাসে মাসে ইন্সটলমেন্টের টাকাও দিয়ে দেবেন, এমনকি পরে ডাউনপেমেন্টের টাকাটা ঠিক সময়ে শোধও করবেন, তবে কথা শোনার পর আদিত্য শর্মা দুর্গা মিনার ছবি শেয়ার করেন এবং তা থেকে মুহূর্তে যোগাড় হয়ে যায় ৭৫হাজার টাকা।

 আদিত্য  নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় দুর্গার ছবি ভাইরাল করেছিলেন যা থেকে আজ দুর্গা জীবনে এতটা সাফল্য পেয়েছে, কারণ আদিত্য দুর্গার এই করুণ কাহিনী টুইটারে শেয়ার না করলে আজ যতগুলো সাহায্যের হাত দুর্গার কাছে এসে পৌঁছাতো না। গতকাল দুপুরে আদিত্য  আরো একটি ছবি শেয়ার করেছেন যেখানে একটি হিরো স্প্লেন্ডার বাইকের ছবিও শেয়ার করেছেন যা দেখে সকলেই খুশি দুর্গার পাশে থাকতে পেরে।

Post a Comment

Previous Post Next Post