নিজের মেয়েকে নিয়ে কবরে শুতে যায় বাবা! আসল ঘটনা জানলে আশ্চর্য হবেন আপনিও :-

 


         সন্তানের বাবা হবার মতো স্বর্গীয় সুখ বোধহয় পৃথিবীতে খুব কমই মেলে। জীবনের সর্বস্ব বিলিয়ে দিয়ে,দিন শেষে সন্তানের পছন্দের জিনিস এনে , তার মুখে হাসি ফোটানোর নামই বাবা। নিজের সারাদিনের পরিশ্রম দিয়ে, মাথার ঘাম পায়ে ফেলে, পৃথিবীর সবচেয়ে দুর্মূল্য জিনিসটা শুধুমাত্র একজন বাবা-ই তার মেয়ের কাছে হাজির করতে পারে। একজন মানুষ যতই অসৎ, স্বার্থপর হোক না কেন, তার সন্তান পৃথিবীর আলো দেখার পর তার সমস্ত জীবনটাই বদলে যায়। শিশুরা যেহেতু ঈশ্বরের আরেকটি রূপ, নিজের মেয়ের ইচ্ছা পূরণ করাই একজন পিতা  কাছে স্বর্গীয় আনন্দের অনুভূতির সমান। এইজন্য, একজন বাবা বোধ হয় তার মেয়েকে সবচেয়ে বেশি ভালোবাসে।

           এরকম একজন বাবা, যদি আগে থেকেই জানতে পারেন, যে তার কন্যা মুমূর্ষু? তিনি যদি জেনে যান যে তার মেয়েকে তিনি আর চোখের সামনে খুব বেশি দিন দেখতে পারবেন না? কি মানসিক অবস্থা হবে তার? কি বা করবে সেই বাবা? এরকমই এক দুর্ভাগা বাবার গল্প আজ আপনাদের শোনাবো।

            সম্প্রতি চীনে ঘটে যাওয়া একটি ঘটনা। শিশুটি একটি দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত। ডাক্তার জানিয়েছেন মেয়েটির রক্তের কোষ সঠিকভাবে কাজ না করায় সে আর খুব বেশি হলে এক বছর বাঁচবে। ডাক্তার যখন জানিয়ে দিয়েছেন—যে মেয়েটির বাঁচার সম্ভাবনা আর বেশিদিন নয়, তখন থেকেই তার পিতা লিয়াং তাকে নিয়ে কবরে ঘুমায়। কবরে লিয়াং তার মেয়ের সাথে খেলাও করে।

           চীনের সিচুয়ান প্রদেশের ঝাঙ্গ ঝিনলেই গ্রামের এক কৃষক লিয়াং । তার মেয়ের রক্তের অসুস্থতা ( থ্যালাসেমিয়া) তে আক্রান্ত। লিয়াং তার মেয়ের এই অসুস্থতা সম্বন্ধ জ্ঞাত হওয়ার পর থেকে এবং তার কন্যার মৃত্যু অবিশ্যম্ভাবী এটা জানার পর থেকে মেয়েটিকে কবরে বেঁচে থাকা শেখায়। অনেক হৃদয়বিদারক ঘটনার মধ্যে এটি একটি। অনেকে এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে দুঃখ প্রকাশও করেছেন।

Post a Comment

Previous Post Next Post